আন্দোলনের আড়ালে বিএনপি-জামায়াতের পরিকল্পনায় ভীত আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়

0
116

নিউজ ডেস্ক: বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী দাবি করেছেন, বাংলাদেশের গণতন্ত্র নিয়ে বিশ্ববাসী উদ্বিগ্ন। তবে আমির খসরুর বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, দেশের গণতন্ত্র নয় বরং বিএনপি-জামায়াতের দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্রে উন্নয়ন ব্যাহত হওয়ার বিষয়টি নিয়ে উদ্বিগ্ন বিশ্ব সম্প্রদায়।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, খালেদা জিয়ার মুক্তি ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার মিথ্যা দাবি নিয়ে বিএনপি-জামায়াতের হত্যা, ধ্বংস ও জ্বালাও-পোড়াও সংক্রান্ত ষড়যন্ত্র অনুধাবন করে দেশের উন্নয়ন নিয়ে উদ্বিগ্ন বিদেশি বন্ধুরাষ্ট্রগুলো।

দেশব্যাপী হামলা ও ধ্বংসের রাজনীতিতে মত্ত বিএনপি-জামায়াত দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় বাধা সৃষ্টি করতে পারে এমন মন্তব্য করে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের একজন অধ্যাপক বলেন, সমগ্র বিশ্বে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। বাংলাদেশ সার্বিক বিষয়ের অগ্রগতিতে অনুসরণীয়। বিশ্বের বিভিন্ন রাষ্ট্র আজকে বাংলাদেশকে সামনে রেখে উন্নয়নের পরিকল্পনা করছে। সেই মুহূর্তে এসে বিএনপি-জামায়াত দণ্ডপ্রাপ্ত নেত্রীর মুক্তি ও গণতন্ত্র উদ্ধারের নামে দেশব্যাপী হত্যা, ধ্বংসের পরিকল্পনা করছে। তাদের এমন পরিকল্পনা অনুধাবন করায় বিশ্ব আজ চিন্তিত। কারণ তারা বাংলাদেশের এগিয়ে যাওয়াকে সমর্থন করেন, সন্ত্রাসীদের হুংকারকে নয়।

তিনি আরো বলেন, জামায়াতকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে চিহ্নিত করে তাদের রাজনীতি থেকে দূরে রাখার পরামর্শ দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেস। কারণ বিএনপি-জামায়াতের শাসনামলে দক্ষিণ এশিয়ার বিভিন্ন দেশগুলোতে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদের ব্যাপক বিস্তার ঘটে। তাই বিএনপি-জামায়াতের ষড়যন্ত্র অনুধাবন করতে পেরেই উদ্বেগ প্রকাশ করছে বাংলাদেশের বন্ধুরাষ্ট্র ও সংস্থাগুলো। তাই নিজেদের দোষ ক্ষমতাসীনদের ঘাড়ে চাপানোর অপচেষ্টা চালাচ্ছে বিএনপি। অবশ্য তাদের এই অপচেষ্টা সফলতার মুখ দেখবে না বলেও আমি বিশ্বাস করি।

বিষয়টিকে ভিন্নভাবে ব্যাখ্যা করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, জামায়াতকে নিয়ে আমাদের অস্বস্তির শেষ নেই। তাই বলে বিএনপি কিন্তু দেশের জন্য ক্ষতিকারক দল নয়। বিএনপি সব সময় দেশের পক্ষে থেকে কাজ করতে চায়। আমরা বিএনপির মিত্রদের স্পষ্টভাবে বলতে চাই, আমাদের দাবি যৌক্তিক। সুতরাং আমরা যৌক্তিক আন্দোলনের পথেই থাকব। তবে খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য যা করা প্রয়োজন, আমরা তাই করব। বেগম জিয়ার মুক্তির জন্য কারো গাইড লাইনের প্রয়োজন নেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here